শিরোনাম :
‘ভূঞাপুর রিপোর্টার্স ইউনিটি’র নতুন কমিটি আত্মপ্রকাশ! ভূঞাপুরে মালা হত্যায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ভূঞাপুরে ৮৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক! ভূঞাপুরে মর্মান্তিক মটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৩ ভূঞাপুরে উপ-প্রকৌশলী মিরাজুলের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও ঘুষের অভিযোগ ভূঞাপুরে ঐতিহ্যবাহী বাউল গানের আসর অনুষ্ঠিত “যখন ইচ্ছে তখন অফিসে আসবো”-ভূঞাপুর খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের উন্মুক্ত তালিকা করলেন চেয়ারম্যান দিদারুল আলম খান মাহবুব ভূঞাপুরে মতিন সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ ভূঞাপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বনিক সমিতির মিলাদ-দোয়া ও কাঙ্গালীভোজ!

অনশনরত শিক্ষার্থীদের মাঝে ২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৮৩ দেখেছেন

মোঃ আমিরুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

আমরণ অনশনে অবস্থানরত রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের হাবিবুর রহমান হাবিব ও মাজেদুল ইসলাম নামের ২ শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হয়ে গেছে।

দুজনই সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের ছাত্র। তাদের মধ্যে হাবিবকে শাহজাদপুর পৌর শহরের পিপিডি ট্রাস্ট হাসপাতালে ও মাজেদুলকে এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী মাহমুদুর রহমান রাকিব।

বিক্ষোভ চলাকালীন সময়ে!


জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিক্ষার বিষয় নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রক্টর বরাবর স্মারকলিপি জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া করেন। বিষয়টি জানতে পেরে ক্ষুব্ধ হয়ে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন রোববার ১৪ জন ছাত্রের মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেন এবং তাদের লাঞ্ছিত করেন।

পরে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে সহকারী প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন সেই ১৪ জন ছাত্রকে ডেকে নিয়ে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখান।

চুল কাটার বিষয়, সহকারি প্রক্টর দ্বারা হুমকি ও লাঞ্ছিত হওয়ার পর হতাশাগ্রস্থ্য হয়ে নাজমুল হোসেন নামের এক শিক্ষার্থী ঘুমের ঔষধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে সহপাঠিরা তাকে উদ্ধার করে এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তারপর থেকেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা সোমবার গভীর রাত থেকে শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের বহিস্কার দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকেন।

পরদিন দুপুরে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি মোঃ আব্দুল লতিফের নেতৃত্বে বেশকয়েকজন শিক্ষক আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মাঝে এসে সঙ্কট নিরসনে আলোচনার প্রস্তাব দেন।

প্রশাসনিক ভবনে প্রাং ৬ ঘন্টা আলোচনার পর কোন সমাধানে আসেনি উভয়পক্ষ। পরে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে এসে আবারো বিক্ষোভ করতে থাকেন।

বুধবার সকাল ৯ টায় থেকে শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশনের ঘোষনা দেয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি