শিরোনাম :
‘ভূঞাপুর রিপোর্টার্স ইউনিটি’র নতুন কমিটি আত্মপ্রকাশ! ভূঞাপুরে মালা হত্যায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ভূঞাপুরে ৮৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক! ভূঞাপুরে মর্মান্তিক মটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৩ ভূঞাপুরে উপ-প্রকৌশলী মিরাজুলের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও ঘুষের অভিযোগ ভূঞাপুরে ঐতিহ্যবাহী বাউল গানের আসর অনুষ্ঠিত “যখন ইচ্ছে তখন অফিসে আসবো”-ভূঞাপুর খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের উন্মুক্ত তালিকা করলেন চেয়ারম্যান দিদারুল আলম খান মাহবুব ভূঞাপুরে মতিন সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ ভূঞাপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বনিক সমিতির মিলাদ-দোয়া ও কাঙ্গালীভোজ!

ইউপি নির্বাচনে জনসমর্থনে এগিয়ে নিকরাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১২৬২ দেখেছেন

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনসমর্থনে এগিয়ে নিকরাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার

যমুনা নিউজ ২৪ ডেস্কঃ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এবারও জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়ন পরিষদের ২০১৬ সালে নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার।

তিনি আসন্ন ইউপি নির্বাচনেও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি ২০০৩ সাল থেকে নিকরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের নলছিয়া গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার বাবা আলহাজ্ব মো. আব্দুর রহমান। পেশায় ছিলেন একজন স্কুল শিক্ষক। তাদের পরিবার ছিল খুব সৌখিন।

মতিন সরকার প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করেন নলছিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে। পরে নিকরাইল পলশিয়া রানী দিনমনি উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে এসএসসি পাশ করেন। তারপর নিকরাইল শমশের ফকির ডিগ্রি কলেজে ইন্টারমিডিয়েট (এইচএসসি) করেন। পরে ইবরাহীম খাঁ সরকারী কলেজে বিএসসি শেষ করেন।

চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকারের আওয়ামী লীগের রাজনীতি শুরু হয় ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার শুরু থেকেই। তিনি ১৯৮৬-৮৯ পর্যন্ত পলশিয়া রাণী দিনমনি উচ্চরবিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পরে ১৯৯০-৯১ সালে শমসের ফকির ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে মেধা আর দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তী তে নিকরাইল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও ভূঞাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য পদ লাভ করেন।

পরে ১৯৯৬ সালে নিকরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্মকান্ড নড়েচড়ে বসলে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। এতে মতিন সরকার বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। এরপর ২০০৩ সালের সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১২ সালে পুনরায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে ১৫০ টি ভোটের মধ্য ১০৭ টি ভোট পেয়ে সভাপতি পদে জয়লাভ করেন। বর্তমানে মতিন সরকার সফল চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণনের সেবায় নিয়োজিত আছেন।

এছাড়াও চেয়ারম্যান মতিন সরকার বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধরে ছাত্রলীগের সাধারণ একজন কর্মী হয়ে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন মিছিল, মিটিং ও সমাবেশে অংশ গ্রহণ করতেন। অংশ নিতেন এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে, ১৯৯৪-৯৫ এ স্বৈরাচারী বেগম খালেদা জিয়া সরকার বিরোধী আন্দোলনে, ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আসামী বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টু বিরুদ্ধে আন্দোলনে।

জানা যায়, চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে বরাদ্দকৃত প্রকল্পের কাজ করে এলাকায় সকল শ্রেণীপেশার মানুষের কাছ থেকে কুড়িয়েছেন সম্মান ও ব্যাপক ভাবে হয়েছেন প্রশংসিত। তাছাড়া সরকার ও বিভিন্ন এনজিও কর্তৃক হয়েছেন প্রশংসনীয় ও একাধিকবার পেয়েছেন স্বর্ণপদক।

নিকরাইল ইউনিয়ন পরিষদের প্রত্যন্ত এলাকা ঘুরে জানা যায়, চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার সততার সহীত এলাকার জনসাধারণের বিপদে-আপদে সবসময়ই পাশে থেকে কাজ করেছেন। তাছাড়া তিনি তার এলাকার যুব সমাজকে মুদকমুক্ত, সু-শিক্ষিত ও মেধাবী করে গড়ে তুলতে খেলাধুলার দিকে ধাপিত করে যাচ্ছেন।

আরো জানা যায়, আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেক প্রার্থীরাই নির্বাচনের প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। তন্মধ্যে চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার তিনিও আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে ইতোমধ্যেই শুরু করে দিয়েছেন প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার যমুনা নিউজ ২৪কে বলেন, আমি ছাত্রজীবন থেকেই রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত রয়েছি। ইউনিয়ন বাসীর সুখে-দুঃখে সব সময় পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। এলাকার যুবসমাজ কে নেশাও মাদক মুক্ত রাখতে কাজ করে যাচ্ছি। সততা ও নিষ্ঠার সাথে  সরকারী/বেসরকারী সকল কাজ করেছি। ইউনিয়নের রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন করেছি, কিছু রাস্তার কাজ চলমান আছে।

তবে এবারও নির্বাচিত হলে প্রথমে আমার অসম্পূর্ণ কাজগুলো শেষ করব। আশা করি দল যোগ্য বক্তি/প্রার্থীকে যাচাই করে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দিবেন।

উল্লেখ্য, মহামারী করোনাকালীন সময়ে চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুল মতিন সরকার নিজস্ব অর্থায়নে তার এলাকার অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও করোনা ভাইরাস সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

JN-24/2021

© যমুনা নিউজ ২৪

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি